ডিআইজি মিজানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা     শিক্ষা সেবা সহজ করতে পদ্ধতিগত পরিবর্তন আনা হবে : শিক্ষামন্ত্রী     বিদেশে ১৩টি মিশনে নিজস্ব চ্যানসারী ভবন রয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী     বাজেটের ১৪.২১ শতাংশ সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য বরাদ্দ : পরিকল্পনামন্ত্রী     বিদেশে ১৩টি মিশনে নিজস্ব চ্যানসারী ভবন রয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী     এ বছর সীমান্তে ৭২৮,৭৫,৪২,৪৩৫ টাকা মূল্যের চোরালানী পণ্য আটক হয়েছে : স্বারাষ্ট্রমন্ত্রী     আফগানদের ২৬৩ রানের চ্যালেঞ্জ দিল টাইগাররা     সরকারি কর্মকর্তাদের পদোন্নতির বিষয়ে টিআইবি’র প্রতিবেদন মন্ত্রিসভায় প্রত্যাখ্যান    

বিএনপির রুমিন ফারহানার বক্তব্য এক্সপাঞ্জের দাবি

  জুন ১২, ২০১৯     ২৯২     ১২:১৩ অপরাহ্ণ     জাতীয় সংবাদ
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, ‘বিএনপি শপথ নিয়ে বর্তমান সংসদ যে বৈধ, তার প্রমাণ দিয়েছে। আবার অধিবেশনে সংসদকে অবৈধ বলে দেশের ১৬ কোটি মানুষকে অপমানিত করেছে।  ভোটারদের অবমাননা করেছে।’

মঙ্গলবার সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে তিনি এ কথা বলেন।

রেলমন্ত্রী বিএনপির সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানার বক্তব্য এক্সপাঞ্জের দাবি জানান। এ সময় স্পিকার কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী সংসদকে অবৈধ বলা অংশটুকু এক্সপাঞ্জ করে দেন।

বাজেট অধিবেশন শুরুর দিনই পয়েন্ট অব অর্ডারে বক্তব্য দিয়ে সংসদ অধিবেশনে উত্তাপ ছড়িয়েছেন বিএনপির দুই সংসদ সদস্য। ঈদের চাঁদ দেখা নিয়ে বিভ্রাট ও সংসদের বৈধতা প্রশ্নে বক্তব্য দিলে এ উত্তাপ ছড়ায়। পয়েন্ট অব অর্ডারে বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেন। বিএনপির সংরক্ষিত আসনের সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা তার বক্তব্যে সংসদের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

বিএনপির দুই সংসদ সদস্যের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানান সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা। এ সময় অধিবেশনে কিছুটা হৈ-হট্টগোল ও উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ে।

পয়েন্ট অব অর্ডারে বক্তব্য রাখেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, ফখরুল ইমাম, ডা. রুস্তম আলী ফরাজী, পীর ফজলুর রহমান। এ ছাড়া, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথ বক্তব্য রাখেন।

এর আগে জাতীয় পার্টির ডা. রুস্তম আলী ফরাজী ফ্লোর নিয়ে বলেন, ‘৯০ ভাগেরও বেশি ওষুধ মেয়াদোত্তীর্ণ, তবুও বিক্রি হচ্ছে। আর চাঁদ দেখা নিয়ে দায়িত্বপ্রাপ্তদের তড়িঘড়ি করা উচিত হয়নি।’

জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান বলেন, ’৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যার পর জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে দেশে মদ-জুয়ার লাইসেন্স দেয়া হয়েছিল। জঙ্গিবাদ, বাংলা ভাই-শায়খ আবদুর রহমানদের তৎপরতা বিএনপি আমলে দেশবাসী দেখেছে। কিন্তু বর্তমানে ঈদে চাঁদ দেখানো নিয়ে জনগণকে ভোগান্তি দেয়া হয়েছে। আর রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে বালিশের দাম নিয়ে সারা দেশে তোলপাড় চলছে।’

সরকারি দলের সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথ বলেন, ‘জনমতের চাপে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার এদিন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়েছিল। সম্পূর্ণ বিনা অপরাধে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। বিএনপি-জামায়াত জোটের দুঃশাসন-লুটপাটের কারণেই এই ওয়ান ইলেভেনের সৃষ্টি হয়েছিল।’

জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম বলেন, ‘নির্বাচনের আগে এ সরকারের একটি প্রতিশ্রুতি ছিল দুর্নীতিমুক্ত রাষ্ট্র। এখন দেখতে পাচ্ছি কিছুই হচ্ছে না। ব্যাংক থেকে অনেক টাকা গায়েব হয়ে গেছে। এত টাকা গেল কোথায়? বলা হচ্ছে, প্রবৃদ্ধি ৮ শতাংশ ছড়িয়েছে। তাহলে ব্যাংকের টাকা গেল কোথায়? ঋণের টাকা ফেরত আসছে না। আসলে টাকা যাচ্ছে কোথায়, সরকারের সেটা খতিয়ে দেখা উচিত।’

উত্তরণবার্তা/এআর
 



গ্রিল স্বাদে মুখরোচক চিকেন

  জুন ১৭, ২০১৯     ৩৬১

শীর্ষে ‘স্লো মোশন’

  জুন ১৫, ২০১৯     ৩৪২

পুরনো খবর