আইপিএল মাঠে গড়াচ্ছে ২৯ মার্চ     ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় উন্নত দেশগুলোকে এগিয়ে আসতে হবে : প্রধানমন্ত্রী     তাপসের ইশতেহারে ত্রিশ বছরের মহাপরিকল্পনা, পাঁচ রূপরেখা     করোনা ভাইরাসে চীনের মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩২     উহান থেকে এখনই বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনা সম্ভব নয় : পররাষ্ট্রমন্ত্রী     সারা দেশ রেল নেটওয়ার্কের আওতায় আনতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ     চীন থেকে ফিরতে চাওয়া বাংলাদেশিদের রেজিস্ট্রেশন শুরু     হাতিরঝিল-রামপুরা সেতু-ডেমরা মহাসড়ক উন্নীতকরণ সহায়ক প্রকল্প অনুমোদন    

বৃষ্টির সঙ্গে বাড়ছে রুপালি ইলিশ

  আগস্ট ১৬, ২০১৯     ২৭৬     ১২:৪৮ অপরাহ্ণ     আরও
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : গভীর সাগরে জেলেরা জাল ফেলতেই ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। তাই হাসিমুখে উপকূলে আসছেন তারা। মাছ আহরণে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর গত ২৪ জুলাই থেকে জালে রুপালি ইলিশ ধরা পড়ায় জেলে-ফিশিং ট্রলার মালিক ও মৎস্য আড়তদারদের মুখে হাসি ফুটেছে।

চট্টগ্রামের জেলে পল্লীগুলোতে এখন আনন্দের বন্যা। নগরের ফিশারি ঘাটে দেখা গেছে, ইলিশভর্তি নৌকা নিয়ে সাগর থেকে ফিরছে জেলেরা।

ছোট-বড় সব আকারের ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে ঘাটে। তবে বাজারে দাম তেমন কমছে না। এক কেজি ওজনের প্রতিটি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে এক হাজার-১২শ’ টাকায়। সাগরে বিগত কয়েক বছরের তুলনায় বেশি ইলিশ ধরা পড়ছে।

মৎস্য বিভাগ বলছে, বৃষ্টির ওপর নির্ভর করে ইলিশের গতিপথ। পুরো মৌসুম জুড়ে এবার ইলিশের সরবরাহ থাকবে। নিষেধাজ্ঞার সুফল পেতে শুরু করেছেন জেলেরা।

ফিশারিঘাটের মাছ ব্যবসায়ীরা জানান, সাগরে ইলিশ ধরা পড়ায় খুশি তারাও। গেল বছরের তুলনায় এবার আরও লাভবান হওয়া যাবে।

ট্রলার থেকে নামিয়ে ঠেলাগাড়ি বা ভ্যানে এসব ইলিশ আনা হয় ফিশারি ঘাটে। মানভেদে প্রতি কেজি ছোট ইলিশ বিক্রি হচ্ছে সাড়ে তিনশ থেকে ছয়শ টাকা পর্যন্ত। সামনে ইলিশের দাম আরো কমবে বলে মনে করছেন আড়তদাররা।

জেলেরা জানান, এটি ইলিশের ভরা মৌসুম। চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপকূলে যেসব ইলিশ ধরা পড়ছে সেগুলো আকারে ছোট হলেও পদ্মার ইলিশ আকারে একটু বড়। ফিশারিঘাট থেকে এসব ইলিশ দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হচ্ছে।

দেশে গত দশ বছরে অনেক বেড়েছে জাতীয় মাছ ইলিশের উৎপাদন। ১৭টি ইলিশ প্রধান জেলায় পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা নদীতে বছরের নির্দিষ্ট সময়ে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে এবং মার্চ-এপ্রিলে প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ ও জাটকা ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ থাকে।

মৎস্য অধিদপ্তরের ইলিশ পর্যবেক্ষণ সেলের হিসেবে, ১৫ বছর আগে দেশের ২৪টি উপজেলার নদীতে ইলিশের বিচরণ ছিল। এখন দেশের অন্তত ১২৫টি উপজেলার নদীতে ইলিশ বিচরণের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

তবে জলবায়ু পরিবর্তন, নদীতে সৃষ্ট বহু চর ও ডুবোচর এবং পদ্মা ও মেঘনার নাব্যতা হ্রাস পাওয়ার কারণে সমুদ্র থেকে ইলিশ মিঠা পানিতে আসতে বাধা পাচ্ছে। এতে ইলিশের গতিপথ পরিবর্তন হচ্ছে।

উত্তরণবার্তা/এআর



বৃষ্টিতে তীব্র শীত অনুভূত

  জানুয়ারি ২৯, ২০২০

২ দিনে হাসপাতাল বানালো চীন

  জানুয়ারি ২৯, ২০২০

বিস্ফোরিত হবে উজ্জ্বল তারকা

  জানুয়ারী ২৯, ২০২০     ২০

২ দিনে হাসপাতাল বানালো চীন

  জানুয়ারী ২৯, ২০২০     ১৩

বঙ্গমাতার চরিত্রে পূর্ণিমা

  জানুয়ারী ২৯, ২০২০     ৯

পুরনো খবর