সন্ধ্যায় বিশেষ বিমানে পাকিস্তান যাচ্ছেন মাহমুদুল্লাহরা     সিটি নির্বাচনে লেমিনেটিং করা পোস্টার লাগানোর ওপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা     শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকার পূর্বাভাস     ফের হাসপাতালে সম্রাট     চীনের করোনা ভাইরাস আতঙ্ক: সতর্ক রাশিয়া     দক্ষিণ এশিয়ায় আমরাই প্রথম ই-পাসপোর্ট শুরু করলাম: প্রধানমন্ত্রী     পরপর চারজন সংসদ সদস্যের মৃত্যু অত্যন্ত কষ্টের : প্রধানমন্ত্রী     মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহারের বিশেষ নির্দেশনা    

রাজশাহীতে বখাটে ধরতে মাঠে প্রশাসন

  আগস্ট ১৮, ২০১৯     ৬৪     ২:৪০ অপরাহ্ণ     আরও
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : বখাটেদের ধরতে মাঠে নেমেছে রাজশাহী জেলা প্রশাসন। শনিবার থেকে রাজশাহী মহানগরীতে ইভটিজিংবিরোধী বিশেষ এই ভ্রাম্যমাণ আদালত চালু হয়েছে।

বখাটেদের হাতে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) একজন শিক্ষক নাজেহাল হওয়ার ঘটনা নিয়ে পত্রপত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলে বখাটেদের ধরতে মাঠে নামে প্রশাসন।

শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের নির্বহী ম্যাজিস্ট্রেট জান্নাত আরা এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন। বিকেলে ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত আমান আজিজ দায়িত্বে ছিলেন। তারা বখাটেদের বিচরণ এলাকায় অভিযান চালান। এছাড়া রোববার দুপুর পর্যন্তও এ অভিযান অব্যাহত ছিলো।

এদিকে শুধু জেলা প্রশাসনই নয়, বখাটে বাইক বাহিনীকে বাগে আনতে নগরীর মোড়ে মোড়ে কাগজপত্র যাচাই করছে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) ট্রাফিক বিভাগ। বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালানো, ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকাসহ নানা কারণে ইতোমধ্যে রেকর্ড সংখ্যক মামলা দেয়া হয়েছে। খুব স্বল্প সময়ের মধ্যে এ অভিযানে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) যোগ দেবে বলে জানিয়েছেন রাজশাহীর ডিসি হামিদুল হক।

তিনি বলেন, ‘রাজশাহীতে বখাটেদের দৌরাত্ম বেড়ে যাওয়ায় আমরা উদ্বিগ্ন। সেজন্য অভিযান শুরু করেছি। প্রথম দিন আমাদের ভ্রাম্যমাণ আদালত জনবহুল স্থানগুলোতে অবস্থান নিয়ে কারো কোনো সমস্যা হচ্ছে কি না তা দেখেছে। মেয়েদের কাছে প্রশ্ন করা হয়েছে কেউ বিরক্ত করছে কিনা। তবে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পরিস্থিতি নিয়ে সন্তুষ্ট না হওয়া পর্যন্ত আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

জেলা প্রশাসক বলেন, ‘রোববার থেকে পুরো রাজশাহীতে মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযানও শুরু করেছে পুলিশ। রাজশাহীর শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় সব ধরনের তৎপরতা অব্যাহত থাকবে।’

এদিকে জেলা জেলা প্রশাসকের নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে বলা হয়েছে, ‘ইভটিজিংবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শুরু করা হয়েছে। এটি চলতে থাকবে। সাথে সাথে অনিয়ন্ত্রিত গতিতে মোটরসাইকেল চালানো, নিরিবিলি বসে গাঁজা বা মাদকসেবনবিরোধী অভিযানও চলবে। যারা ইভটিজিংয়ের শিকার, তারা ভয় না পেয়ে থানায় বা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করুন। আপনি প্রতিবাদ শুরু করলে আরো অনেকে সাহসি হবে।’

এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় উঠতি বয়সী সন্তানদের সামলাতে অভিভাবকদের উদ্দেশে ফেসবুকে অপর একটি স্ট্যাটাস দেন জেলা প্রশাসক হামিদুল হক। এতে সন্তানদের খোঁজখবর রাখার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ইভটিজার হিসেবে আটক হলে জেল জরিমানা হতে পারে।’

জেলা প্রশাসক হামিদুল হক জানান, তিনি রাজশাহীর পুলিশ সুপারের (এসপি) সঙ্গেও কথা বলেছেন। মহানগরীর বাইরে উপজেলা পর্যায়েও এই ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এই ব্যবস্থার কারণে যারা বখাটে বা যারা ইভটিজিং করে তারা একটা ভয়ের মধ্যে থাকবে। তারপরেও যারা কথা শুনবে না তাদের আটক করা হবে।

উত্তরণবার্তা/এআর
 



ফের হাসপাতালে সম্রাট

  জানুয়ারি ২২, ২০২০

খাবার থেকেও পেতে পারি উষ্ণতা

  জানুয়ারী ২২, ২০২০     ২২

কুড়িগ্রামে ফের শৈত্যপ্রবাহ

  জানুয়ারী ২২, ২০২০     ২০

পাওনা ২০০ টাকা চাওয়ায় কুপিয়ে জখম

  জানুয়ারী ২২, ২০২০     ১০

পুরনো খবর