উন্নয়নের চাকা সচল রাখতে দুর্নীতি দমনে বিকল্প নেই     ‘জয় বাংলা’ জাতীয় স্লোগান হওয়া উচিত: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী     বিএসএফ বাংলাদেশে এসে ‘বাহাদুরি’ দেখিয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী     জরুরি অবতরণে বাধ্য হল অমিত শাহকে বহনকারী হেলিকপ্টার     মশাবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণে আলাদা সেল হচ্ছে : এলজিআরডি মন্ত্রী     ঐক্যফ্রন্ট রাজনীতির মাঠে বিগত যৌবনা : তথ্যমন্ত্রী     গোপালগঞ্জে শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুলব্যাগ ও টিফিনবক্স বিতরণ     মানসিকভাবে দুর্বল তরুণরাই নতুন করে জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে : মনিরুল ইসলাম    

রাজধানীর ৩৫ স্থানে ন্যায্যমূল্যে পণ্য বিক্রি করছে টিসিবি

  অক্টোবর ০১, ২০১৯     ২২     ১৪:২৪     আরও
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : রাজধানীর ৩৫টি স্থানে ন্যায্যমূল্যে পণ্য বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন বাংলাদেশ (টিসিবি)। আজ মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) সকালে শুরু হয় এসব পণ্য বিক্রি।

ট্রাকে করে পেঁয়াজ, মশুর ডাল, চিনি, সয়াবিন তেল বিক্রি করছে টিসিবি। এর মধ্যে পেঁয়াজের চাহিদা সবচেয়ে বেশি বলে জানা গেছে।  এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ১৬ স্থানে শুরু হয় ন্যায্যমূল্যে পণ্য বিক্রি।

ট্রাকে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকায়। এ ছাড়া প্রতিকেজি চিনি ৫০ টাকা ও মশুর ডাল ৫০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে (২ ও ৫ লিটার) প্রতি লিটার ৮৫ টাকায়।

টিসিবি সূত্র জানায়, সকাল সাড়ে ৯টায় বিক্রি শুরু হয়েছে ন্যায্যমূল্যের পণ্য। চারটি পণ্যের মধ্যে পেঁয়াজের চাহিদা বেশি। যতক্ষণ পণ্য থাকবে ততক্ষণ চলবে এ ন্যায্যমূল্যের পণ্য বিক্রি।

বাজারে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৫ সেপ্টেম্বর  সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে ন্যায্যমূল্যে খোলা বাজারে পণ্য বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ওইদিন সন্ধ্যায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে মানুষকে স্বস্তি দিতে সরকার খোলাবাজারে ন্যায্যমূল্যে পেঁয়াজ বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে খোলাবাজার থেকে একেকজন পাঁচ কেজির বেশি পেঁয়াজ কিনতে পারবে না।

পেঁয়াজ আমাদানির ক্ষেত্রে এলসি মার্জিন এবং সুদের হার কমাতেও  প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি পাঠানো হয়। বলা হয়, বন্দরে আমদানি করা পেঁয়াজের খালাস প্রক্রিয়া দ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করা এবং নির্বিঘ্নে পরিবহনের যাতায়াত নিশ্চিত করার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষ বরাবর চিঠি পাঠানো হয়েছে।

ঢাকার যেসব স্থানে টিসিবির পণ্য পাওয়া যাবে সেসব স্থান হলো সচিবালয়ের গেইট, প্রেস ক্লাব, কাপ্তান বাজার, ভিক্টোরিয়া পার্ক,  সায়েন্সল্যাব মোড়, নিউ মার্কেট/নীলক্ষেত মোড়, শ্যামলী/কল্যাণপুর, ঝিগাতলা মোড়, খামারবাড়ি, ফার্মগেট, কলমীলতা মোড়, রজনীগন্ধা সুপার মার্কেট, কচুক্ষেত, আগারগাঁও তালতলা ও নির্বাচন কমিশন অফিস, রাজলক্ষ্মী কমপ্লেক্স, উত্তরা, মিরপুর-১ নম্বর মাজার রোড, শান্তিনগর বাজার, মালিবাগ বাজার, বাসাবো বাজার, আইডিয়াল স্কুল, বনশ্রী, বাংলাদেশ ব্যাংক চত্বর, মহাখালী কাঁচাবাজার, শেওড়াপাড়া বাজার, দৈনিক বাংলা মোড়, শাহজাহানপুর বাজার, ফকিরাপুল বাজার ও আইডিয়াল জোন, মতিঝিল বক চত্বর, খিলগাঁও তালতলা বাজার, রামপুরা বাজার, মিরপুর-১০ নম্বর গোল চত্বর, আশকোনা হাজি ক্যাম্প, মোহাম্মদপুর টাউনহল কাঁচাবাজার, দিলকুশা,  মাদারটেক নন্দীপাড়া কৃষি ব্যাংকের সামনে ও পলাশী মোড়ে।

উত্তরণবার্তা/এআর
 



পুরনো খবর