লেখাপড়া করে মেধা অর্জন করতে হবে : রাষ্ট্রপতি     সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ, ভূমিদস্যু, দুর্নীতিবাজ ও মাদক ব্যবসায়ীরা সাবধান     জিসানের মুক্তির খবর ভিত্তিহীন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী     বুয়েট আন্দোলনে শিবির-ছাত্রদল সক্রিয় : তথ্যমন্ত্রী     হাজিবিস মোকাবেলায় ২৭ হাজার সেনা, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৩     উচ্চফলনশীল নতুন ধান উদ্ভাবন করলেন বাকৃবির ভিসি     ছেলে এবং মেয়ে শিশুর সমতা নিশ্চিতে বৈষম্যহীন অনুকূল পরিবেশ গড়ে তুলতে হবে     পুলিশের ৫৮ এএসপি পদোন্নতি পেয়ে অতিঃ পুলিশ সুপার হলেন    

সন্ধ্যায় মুখোমুখি বাংলাদেশ-কাতার

  অক্টোবর ১০, ২০১৯     ২১     ১৩:১৬     ক্রীড়া
--

উত্তরণবার্তা ক্রীড়া ডেস্ক : বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাঠে নামবে বাংলাদেশ। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ সবার আগে ২০২২ বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত করা কাতার। কাতার অবশ্য বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব খেলছে না। তারা খেলছে ২০২৩ এশিয়ান কাপের বাছাইপর্ব। যেটা বাংলাদেশও খেলছে। পাশাপাশি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বও। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টায়। যা সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলা টিভি ও বিটিভি।

কাতারের সঙ্গে বাংলাদেশ খুব বেশি ফুটবল খেলেছিল। ১৯৭৬ সাল থেকে এ পর্যন্ত মাত্র তিনবার মুখোমুখি হয়েছে। তার মধ্যে একবার ড্র করেছে বাংলাদেশ। তাও ১৯৭৬ সালে। এরপর কাতারের ফুটবল এগিয়েছে অনেক। আর বাংলাদেশের ফুটবল পিছিয়েছে ঢের। কাতার বর্তমানে এশিয়ার সেরা। আর বাংলাদেশ ধুকছে র‌্যাঙ্কিংয়ের তলানিতে। সে কারণে জয় নয়, কাতারকে রোখার পরিকল্পনা করতে হয় বাংলাদেশকে।

ঘরের মাঠে খেলা হলেও কাতারের বিপক্ষে জেতাটা কঠিন হবে। কারণ, বিশ্বকাপের আয়োজক হওয়ায় অনেকদিন ধরেই তারা নিজেদের গুছিয়ে নিচ্ছে। সে যাত্রায় তারা এশিয়ান কাপের শিরোপাও জিতেছে চলতি বছর। ২০২৩ এশিয়া কাপ বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে উড়িয়ে দিয়েছে ৬-০ ব্যবধানে। যাদের বিপক্ষে বাংলাদেশ তাদের প্রথম ম্যাচ হেরেছে ১-০ ব্যবধানে।

তারপরও ঘরের মাঠে খেলা হওয়ায় কিছুটা আশাবাদী হতেই পারে বাংলাদেশ। তাইতো কোচ জিমি ডে বলেছেন, ‘হার প্রত্যাশা করছি না। সেটা কেউ-ই করে না। গেল দশদিন ধরে ছেলেদের প্রস্তুত করেছি। ভুটানের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি। নিজেদের দিনে বাংলাদেশ যে কাউকে হারাতে পারে। কাতার অবশ্যই কঠিন প্রতিপক্ষ। তাদের বিপক্ষের ম্যাচটি কঠিন হবে।’

কাতার ঘাসের মাঠে খেলে অভ্যস্ত নয়। তারা খেলে আর্টিফিসিয়াল টার্ফে। তার উপর আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী বৃষ্টি হলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে খেলাটা আরো কঠিন হয়ে যাবে তাদের জন্য। তবে কাতারের কোচ বৃষ্টি কিংবা মাঠ নিয়ে মোটেও চিন্তিত নন। তার শিষ্যরা যে মাঠেই খেলুক না কেন, নিজেদের সেরাটা দিয়ে খেলবে, ‘যদিও আমরা এরকম মাঠে খেলে অভ্যস্ত নই। তার উপর বৃষ্টি। অবশ্য বৃষ্টির উপর তো কারো হাত নেই। মাঠ যেমনই হোক আমাদের ছেলেরা তাদের সেরাটা দিয়ে খেলার চেষ্টা করবে।’

কাতারের মতো দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ সব সময় খেলার সুযোগ পায় না। তাইতো তরুণদের জন্য এটা দারুণ সুযোগ নিজেদের প্রমাণ করার। অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়াও তাদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলার পরামর্শ দিয়েছেন। ম্যাচটি উপভোগ করতে বলেছেন।

এখন দেখার বিষয় রহমত মিয়া, রিয়াদুল হাসান, সাদ উদ্দিনরা কেমন করেন র‌্যাঙ্কিংয়ে ৬২তম অবস্থানে থাকা কাতারের বিপক্ষে।

উত্তরণবার্তা/এআর



পুরনো খবর