খেলার মাঠে মুখোমুখি হবেন মমতা-হাসিনা     ইডেনে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী     বঙ্গবন্ধুর নামে হবে আন্তঃকলেজ ফুটবল টুর্নামেন্ট: ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী     দেশের মানুষ ভালো আছে, এটি অনেকের সহ্য হচ্ছে না : প্রধানমন্ত্রী     রোহিঙ্গা গণহত্যা : আন্তর্জাতিক আদালতে মিয়ানমারের নেতৃত্বে সু চি     রাজধানী মার্কেটের আগুন তদন্তে কমিটি     কম্বোডিয়ায় বঙ্গবন্ধুর নামে প্রস্তাবিত সড়ক পরিদর্শনে স্পিকার     শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা    

মানসিকভাবে দুর্বল তরুণরাই নতুন করে জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে : মনিরুল ইসলাম

  অক্টোবর ১৯, ২০১৯     ২৮     ১৮:২৭     জাতীয় সংবাদ
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : মানষিকভাবে দুর্বল তরুণরাই নতুন করে জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম।
তিনি আজ শনিবার দুপুরে রাজধানীর মিন্টুরোডস্থ ডিএমপি’র মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান।
উগ্রবাদ নির্মূলে সেন্টার ফর সোশ্যাল অ্যাডভোকেসি এন্ড রিসার্চ ফাউন্ডেশনের (সিসার্ফ) উদ্যোগে ‘ঢাকা পিস টক’ নামে একটি কর্মসূচির উদ্বোধন সম্পর্কে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
এ কর্মসূচীতে সার্বিক সহযোগিতা করবে কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট এবং অর্থায়ন করছে ইউএসএআইডি।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার (সিটিটিসি) মো. মনিরুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি সিসার্ফ’র প্রধান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শবনম আজীমসহ ইউএসএইড’র প্রতিনিধি, বিপুল সংখ্যক গণমাধ্যম কর্মী ও বিশিষ্টজন।
মনিরুল ইসলাম বলেন, সন্ত্রাসবাদ একটি বৈশ্বিক সমস্যা। বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক দেশ হলেও বিভিন্ন সময়ে সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকিতে পড়েছে। সহিংস উগ্রবাদ বিরোধী কার্যক্রম একটি লংটার্ম প্রসেস।
তিনি বলেন, উগ্রবাদ দমনে শুধু পুলিশই নয়, পরিবার ও সিভিল সোসাইটিসহ সবার সম্মিলিত প্রয়াস থাকতে হবে। সিটিটিসি উগ্রবাদের সঙ্গে সংশি¬ষ্টদের গ্রেফতার করছে, মামলার তদন্ত করছে। পাশাপাশি উগ্রবাদে প্রিভেন্টিভ উদ্যোগ হিসেবে ঢাকা পিস টক কাজ করবে বলে জানান তিনি।
২৫ থেকে ৩০ বছর বয়সী যুবকরাই উগ্রবাদে জড়িত হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, উগ্রবাদ একটি মতবাদ, এটিকে রুখতে পাল্টা মতবাদ প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। যা উগ্রবাদের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি হিসেবে কাজ করবে।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঢাকা পিস টক নামে একটি প্রোগ্রাম ঢাকায় চালু হচ্ছে। ঢাকায় সফল হলে দেশের অন্য কোথাও চালুর চিন্তা করা হবে।
এ ধরনের কার্যক্রম আরো বেশি আয়োজনের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে তিনি বলেন, হলি আর্টিজান পরবর্তি সময়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল।
তিনি বলেন, গত কয়েক বছরে সন্ত্রাসবাদ কমে যাওয়ায় এ কার্যক্রম কমে গেছে। কিন্তু জঙ্গিবাদের ঝুঁকি কমে যায়নি, এটা রিয়াল থ্রেড। এখনো বিচ্ছিন্নভাবে কিছু কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। এ বিষয়ে আরো সুসংহতভাবে কাজ করবে ঢাকা পিস টক।
মনিরুল ইসলাম বলেন, আমরা ১২টি রাউন্ড টেবিল মিটিংয়ে ২৫জন করে বিভিন্ন শ্রেণী- পেশার মানুষের প্রতিনিধিকে অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ করব। আমাদের বিশ্বাস তাঁরা এখান থেকে উগ্রবাদ বা সহিংস উগ্রবাদ মোকাবেলার শিক্ষা নিয়ে সমাজে সোশ্যাল এ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করবে।
অপর এক প্রশ্নের জবাবে মনিরুল ইসলাম বলেন, গ্রেফতার জঙ্গি সদস্যরা আগে থেকেই জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়েছে, কেউ নতুন করে জড়িয়েছে।
তিনি বলেন, বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠির ইন্টারনেটে লুকরেটিভ এবং এট্রাকটিভ প্যাকেজ থেকে তরুণরা আকৃষ্ট হচ্ছেন। যাদের মধ্যে দেশপ্রেম কম, দায়িত্ববোধ নেই, মতাদর্শে দূর্বল, যারা বাস্তবতার সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারছেনা এবং মানষিকভাবে দুর্বল তরুণরাই নতুন করে রেডিকালাইজড হচ্ছে।

উত্তরণবার্তা/দীিন



পুরনো খবর