যুক্তরাজ্যে ১ দিনে ৫৬২ জনের মৃত্যু     করোনা ছড়িয়ে পড়তে পারে মার্কিন যুদ্ধজাহাজে চার হাজার ক্রুর মধ্যে     প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ৫ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা প্যাকেজের গাইডলাইন প্রকাশ     ছুটি বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন জারি, অফিস খুলবে ১২ এপ্রিল     রেল-বাস পর্যায়ক্রমে চালু হবে     বৃহস্পতিবার ৩০০ জাপানি নাগরিক টোকিওর উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বে     ‌সংক‌টেও রাজনৈতিক ফায়দা লুট‌তে বিএন‌পি অপতৎপরতায় লিপ্ত     রোহিঙ্গা-স্থানীয়দের জন্য বিশ্ব ব্যাংকের ৩৫০ মিলিয়ন ডলার সহায়তা    

খালেদা জিয়ার মুক্তি যে কোনো মুহূর্তে : সেতুমন্ত্রী

  মার্চ ২৫, ২০২০     ২১     ১৪:২০     রাজনীতি
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আনুষ্ঠানিকতা শেষ হলে যে কোনো মুহূর্তে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মুক্তি পাবেন।

আজ বুধবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়ার শাস্তি ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে প্রধানমন্ত্রী তার প্রাজ্ঞ, অভিজ্ঞ ও দূরদর্শী নেতৃত্বের পরিচয় দিয়ে উদারনৈতিক এবং মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

‘আশা করি বিএনপি এ বিষয়টি ইতিবাচক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখে আমাদের সবার অভিন্ন শত্রু করোনা মোকাবেলায় সরকারের সর্বাত্মক ও সম্মিলিত উদ্যোগের সহযোগী হবে। আশা করি, বিএনপি করোনা মোকাবেলায় সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে।’

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার পরিবার স্বরাষ্ট্র ও আইন মন্ত্রণালয়ে আবেদন জানানোয় সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ১০ থেকে ১১ দিন আগে তারা আবেদন করেছেন। ইচ্ছে করলে পরিবার আরও আগেই আবেদন করতে পারতেন। বেগম জিয়া যে কোনো মুহূর্তে ছাড়া পেতে পারেন। কিছু আনুষ্ঠানিকতার বিষয় রয়েছে। আনুষ্ঠানিকতা শেষ হলে তিনি মুক্তি পাবেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দণ্ডাদেশ ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে মুক্তি দেয়ার এ সিদ্ধান্ত হয়।

প্রয়োজনীয় আইনি প্রক্রিয়া শেষে যে কোনো মুহূর্তে মুক্তি পেতে পারেন তিনি। তবে মুক্তি পাওয়ার পর বিদেশে যেতে পারবেন না। পাশাপাশি বাসায় অবস্থান করে চিকিৎসা নিতে পারবেন সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী।

মঙ্গলবার বিকালে হঠাৎ করেই ডাকা এক সংবাদ সম্মেলনে সরকারের এ সিদ্ধান্তের কথা জানান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

তিনি বলেন, মানবিক দিক বিবেচনায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দুই শর্তে তাকে মুক্তি দেয়ার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। খালেদা জিয়া বাসায় থেকে চিকিৎসা নেবেন এবং বিদেশ যেতে পারবেন না- এমন শর্তে তাকে মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ বিষয়ে প্রস্তাব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

এদিন বিকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, আইনমন্ত্রীর সুপারিশ আমরা পেয়েছি। এটি প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। তার সিদ্ধান্ত পাওয়ার পরই আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব।

এদিকে রাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. শহীদুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, আমরা খালেদা জিয়ার মুক্তির ফাইল হাতে পেয়েছি। এ বিষয়ে একটি সারসংক্ষেপ তৈরি করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করব। মন্ত্রীর অনুমোদনের পর সেই ফাইল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুমোদনের পর তাকে মুক্তির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে। এর পরই তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পাবেন।

উত্তরণবার্তা/এআর



পুরনো খবর