এ মৌসুমে আর বন্যা হবে না     চিকিৎসা-জরুরী খাদ্য সামগ্রী নিয়ে বৈরুতের উদ্দেশ্যে বিমান বাহিনীর ঢাকা ত্যাগ     দুদকের পরিচালক হলেন মনিরুল ইসলাম     রাজাকার, আলবদর, আলশামসের তালিকা করতে সংসদীয় সাব কমিটি গঠন     শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মাহিন্দ রাজাপাকসে     প্রয়োজন হলে সীমিত পরিমাণে চাল আমদানি করা হবে : কৃষিমন্ত্রী     করোনা নিয়ে মানুষের ভেতর কনফিডেন্স ডেভেলপ করেছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী     দেশে খাদ্য ঘাটতির আশঙ্কা নেই, চাল উদ্বৃত্ত থাকবে : ব্রির গবেষণা    

মাইক্রোসফট রিসার্চ ডেসার্টেশন গ্র্যান্ট বিজয়ী দুই বাংলাদেশি

  জুলাই ০৯, ২০২০     ৭৪     ২২:১২     শিক্ষা
--

উত্তরণবার্তা  তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : বাংলাদেশের দু’জন পিএইচডি গবেষক চলতি বছরের মাইক্রোসফট রিসার্চ ডেসার্টেশন গ্র্যান্ট পুরস্কার জিতেছেন। প্রতিবছর উত্তর আমেরিকায় কম্পিউটার সায়েন্সে পিএইচডিরত শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে সমাজের সব অংশের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে এ পুরস্কার প্রদান করে থাকে মাইক্রোসফট।

বাংলাদেশি পুরস্কার বিজয়ী দুই গবেষক হলেন- আন্না ফারিহা এবং ফারাহ দীবা। তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ এ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করার জন্য উত্তর আমেরিকার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এবার ২৩০ শিক্ষার্থী আবেদন করেন। সেই শিক্ষার্থীদের গবেষণা পরিকল্পনার বৈজ্ঞানিক ও পদ্ধতিগত সম্ভাব্যতা এবং সমাজের পরিবর্তনে প্রকল্পের সম্ভাব্য প্রভাব যাচাই-বাছাই করে প্রকল্পগুলো থেকে দশ জনকে তাদের গবেষণা প্রকল্পের জন্য ২৫ হাজার ডলারের এ পুরস্কারের জন্য বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুসেটস, অ্যামার্স্টে কম্পিউটার সায়েন্সে পিএইচডি গবেষণারত বাংলাদেশি আনা ফারিহার গবেষণা প্রকল্প (Enhancing Usability and Explainability of Data Systems)-এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে- এক্সপার্ট এবং নন-এক্সপার্ট ব্যবহারকারীদের মধ্যে কম্পিউটার ডেটা সিস্টেম ব্যবহারের ফারাক কমিয়ে আনা। এ লক্ষ্যে তিনি নন-এক্সপার্ট ব্যবহারকারীদের সহজেই কম্পিউটার প্রোগ্রামিং টুলগুলো ব্যবহারের ব্যবস্থা গড়ে তুলে ডেটা সিস্টেমে নন-এক্সপার্ট ব্যবহারকারীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধির ওপর জোর দেন।

ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায় বর্তমানে পিএইচডি গবেষণারত বাংলাদেশি অপর বিজয়ী ফারাহ দীবার (Placenta: Towards an Objective Pregnancy Screening System) গবেষণা প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে- মাতৃস্বাস্থ্যের উন্নয়ন সাধন করা। এ লক্ষ্যে তিনি কোয়ান্টিটিভ আল্ট্রাসাউন্ড (ছটঝ) ব্যবহার করে একটি স্ক্রিনিং পদ্ধতি চালু করার প্রস্তাব করেন, যা গর্ভাবস্থায় প্রাথমিকভাবে সেন্টায় কোন প্রকার অস্বাভাবিকতা চিহ্নিত করে এ ব্যাপারে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার সুযোগ করে দিবে।

উত্তরণবার্তা/এআর



সুস্থ ১৭৬৬, মৃত্যু ৩৪

  আগস্ট ০৯, ২০২০

পুরনো খবর