এ মৌসুমে আর বন্যা হবে না     চিকিৎসা-জরুরী খাদ্য সামগ্রী নিয়ে বৈরুতের উদ্দেশ্যে বিমান বাহিনীর ঢাকা ত্যাগ     দুদকের পরিচালক হলেন মনিরুল ইসলাম     রাজাকার, আলবদর, আলশামসের তালিকা করতে সংসদীয় সাব কমিটি গঠন     শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন মাহিন্দ রাজাপাকসে     প্রয়োজন হলে সীমিত পরিমাণে চাল আমদানি করা হবে : কৃষিমন্ত্রী     করোনা নিয়ে মানুষের ভেতর কনফিডেন্স ডেভেলপ করেছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী     দেশে খাদ্য ঘাটতির আশঙ্কা নেই, চাল উদ্বৃত্ত থাকবে : ব্রির গবেষণা    

বেসিস আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ডে আবেদনের সময় বাড়লো

  জুলাই ১০, ২০২০     ৭৯     ২২:৫৯     শিক্ষা
--

উত্তরণবার্তা তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : চলমান করোনাভাইরাস মহামারির কারণে পরিস্থিতি বিবেচনা করে ও আগ্রহীদের অনুরোধের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)-এর আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ডে অংশগ্রহণের জন্য আবেদনের সময় বাড়ানো হয়েছে। আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য আবেদন করা যাবে।

বেসিস আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ড ২০২০ এর আহ্বায়ক ও বেসিস পরিচালক রাশাদ কবির বলেন, বেসিস আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ড বেসিসের একটি গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম। মহামারি ও লকডাউনের কারণে অনেকেই ইচ্ছা থাকা স্বত্বেও আবেদন করতে পারেননি। তাই তারা অনুরোধ করেছেন যাতে সময় বাড়ানো হয়। তারই প্রেক্ষিতে ও পরিস্থিতি বিবেচনা করে আবেদনের সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে।

তিনি আরও উল্লেখ করেন যে, কোম্পানি ক্যাটাগরিতে ৩টি, ব্যক্তি ক্যাটাগরিতে ২টিসহ মোট ৫টি ক্যাটাগরিতে সর্বমোট ১০০টি অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে। এবারে একটি নতুন ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে সেটি হলো এক্সপোর্ট এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড। সরকার ঘোষিত ১০% রপ্তানি ভর্তুকির জন্য যারা ২০১৮-১৯ অর্থবছরে আবেদন করেছেন তাদের মধ্যে থেকে ৮টি প্রতিষ্ঠানকে এ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে।

বেসিস আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ড ২০২০ এর উপদেষ্টা ও বেসিস এর জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি জনাব ফারহানা এ রহমান বলেন, দীর্ঘ ৫ বছর পর আবারো বেসিস আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ড এ বছর হচ্ছে। রপ্তানিমুখী কোম্পানিগুলোকে উৎসাহিত করার জন্য এই অ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রাম বড় ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মনে করেন। নারীদের ঘরে বসে অনলাইন আউটসোর্সিংয়ে উৎসাহিত করতে পৃথক নারী ক্যাটাগরিতেও তিনটি অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, বেসিস আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ড আয়োজনে বেসিসের অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য হলো সরকারের ২০২৩ সাল নাগাদ ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানগুলোকে উৎসাহিত করা। পাশাপাশি আমরা মনে করি, যারা এখন ব্যক্তি পর্যায়ে আউটসোর্সিং কাজে নিয়োজিত তারা যেন নিকট ভবিষ্যতে একজন উদ্যোক্তা হিসেবে কোম্পানি গঠন করে বেসিসের সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অগ্রযাত্রায় প্রত্যক্ষভাবে অংশ নিতে পারে। তাছাড়া সরকার এখন রপ্তানি আয়ের ওপর ১০% নগদ প্রণোদনা দিচ্ছে যা কোম্পানিগুলোই কেবল নিতে পারবে।

উল্লেখ্য, ব্যাংক এশিয়া ও পেওনিয়ার এর সহযোগিতায় ও বেসিস এর উদ্যোগে অনুষ্ঠেয় বেসিস আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ড ২০২০ এর কার্যক্রম চলমান রয়েছে। রেজিস্ট্রেশন থেকে শুরু করে অভিজ্ঞ বিচারক কর্তৃক বিভিন্ন ধাপে যাচাই বাছাই করে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে ১০০টি অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে। আউটসোর্সিং কোম্পানি ক্যাটাগরিতে ১৫টি, স্টার্টআপ ক্যাটাগরিতে ১০টি, এক্সপোর্ট এক্সিলেন্স ক্যাটাগরিতে ৮টি, জেলা পর্যায়ে ৬৪টি এবং ব্যক্তি নারী ক্যাটাগরিতে ৩টি অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে।

উত্তরণবার্তা/এআর

 



সুস্থ ১৭৬৬, মৃত্যু ৩৪

  আগস্ট ০৯, ২০২০

পুরনো খবর