বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যের আর্কিটেক্ট ছিলেন জিয়াউর রহমান : আইনমন্ত্রী     বঙ্গবন্ধু হত্যার পেছনে লক্ষ্য ছিল নব্য পাকিস্তান সৃষ্টি : আমু     রাজশাহীতে শোক আর শ্রদ্ধায় বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ     করোনা দেশ থেকে বিদায় নেয়ার পথে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী     জিয়া আমাকে মন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিল : রাষ্ট্রপতি     বঙ্গবন্ধু প্রতিষ্ঠিত এফডিসি’র হাত ধরে এদেশের চলচ্চিত্র স্থান নেবে বিশ্বাঙ্গনে : তথ্যমন্ত্রী     ফের ৮০ কিমি বেগে ঝড়ের শঙ্কা, প্লাবিত হবে উপকূলীয় অঞ্চল     বিএনপি সবসময় বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচারে বিরোধিতা করেছে : ওবায়দুল কাদের    

ঝুঁকির মুখে বিশ্বের কোটি কোটি শিশু

  জুলাই ১৫, ২০২০     ৫৭     ২১:৩১     বিদেশ
--

উত্তরণবার্তা আন্তর্জাতিক ডেস্ক : হাম, টিটিনাস ও ডিপথেরিয়ার মতো ভয়ংকর রোগগুলো মোকাবিলায় শিশুদের টিকা দেয়ার মাত্রা আশঙ্কাজনক হারে কমে গেছে।

এর ফলে বিশ্বের কোটি কোটি শিশু ঝুঁকির মুখে পড়ছে বলে বুধবার সতর্ক করেছে জাতিসংঘ।

জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের সঙ্গে দেয়া যৌথ বিবৃতিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক টেডরস গেব্রিয়াসাস আধানম বলেছেন, ‘নিয়মিত টিকা দান কর্মসূচির অনুপস্থিতির কারণে শিশুদের এড়ানোযোগ্য দুর্ভোগ ও মৃত্যু কোভিড-১৯ এর চেয়ে বেশি হতে পারে।’

সংস্থা দুটির পরিচালিত জরিপে ৮২টি দেশের মধ্যে তিন চতুর্থাংশ অংশ নিয়েছে। তারা জানিয়েছে, গত মে মাস থেকে করোনাভাইরাসের কারণে তাদের টিকা দান কর্মসূচি ব্যাহত হচ্ছে। অধিকাংশ ঘটনাগুলো ঘটছে স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামের (পিপিই) অভাব, ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা এবং স্বাস্থ্যকর্মীর সংখ্যা কমে যাওয়ার কারণে। এর সবগুলো কারণে টিকাদান কর্মসূচি হয় সীমিত করা হয়েছে, নতুবা বন্ধ হয়ে গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামের অন্ততপক্ষে ৩০টি টিকাদান কর্মসূচি বাতিলের ঝুঁকিতে আছে অথবা বাতিল হয়ে গেছে। এর ফলে চলতি বছর অথবা আগামীতে এই সংক্রামক রোগের প্রাদুর্ভাবের ঝুঁকি বাড়ছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ইতোমধ্যে হামের সংক্রমণ বেড়েছে। ২০১৮ সালে বিশ্বে প্রায় এক কোটি মানুষ হামে সংক্রমিত হয়েছেন। এদের মধ্যে মারা গেছে ১ লাখ ৪০ হাজার। এই  আক্রান্ত ও মৃতের অধিকাংশই শিশু।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি বছরের প্রথম চার মাসে শিশুদের ডিপথেরিয়া, টিটিনাস ও হুপিং কাশির টিকার ডোজ পাওয়া উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমেছে। গত ২৮ বছরের মধ্যে এই প্রথম শিশুদের এই নিয়মিত টিকাদানের ব্যাপ্তি এতোটা কমেছে।

উত্তরণবার্তা/এআর

 



পুরনো খবর