বৈরুত বিস্ফোরণে প্রাণহানিতে প্রধানমন্ত্রীর শোক     চাল আমদানির অনুমতি দিলেন প্রধানমন্ত্রী     শেখ কামালের জন্মদিনে শেরপুরে ১০ অসচ্ছল ক্রীড়াবিদকে ডিসির অনুদান     ওসি প্রদীপ ও ইন্সপেক্টর লিয়াকতসহ তিনজন রিমান্ডে     সমুদ্রবন্দরসমূহে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত     স্যোশাল মিডিয়ার সার্ভিস প্রোভাইডাররা অপব্যবহারের দায় এড়াতে পারে না : তথ্যমন্ত্রী     ডিএসসিসি এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান     স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদকে দুদকে তলব    

জেসুস-সিলভার গোলে ম্যান সিটির সহজ জয়

  জুলাই ১৬, ২০২০     ৬১     ১৪:৫৬     ক্রীড়া
--

উত্তরণবার্তা ক্রীড়া ডেস্ক : ইতিহাদ স্টেডিয়ামে বুধবার প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতেছে সিটি। পয়েন্ট টেবিলে বর্নমাউথের অবস্থান ১৮'তে আর ম্যানচেস্টার সিটির অবস্থান দুইয়ে। কেবল পার্থক্যটা পয়েন্ট টেবিলেই নয় সেই সঙ্গে খাতা কলমে আর মাঠের খেলাতেও। দুর্বল বর্নমাউথের বিপক্ষে তাই জয়ের বিকল্প কিছুই ভাবছিলেন না পেপ গার্দিওলা।

নিজেদের সেরা একাদশ থেকে কেবল এদিন শুরু থেকেই ছিলেন না কেভিন ডি ব্রুইন। এছাড়া রক্ষণে কাইল ওয়াকার, জন স্টোন্স, নিকোলাস ওটামেন্ডি আর বেঞ্জামিন মেন্ডি। মধ্য মাঠে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ডেভিড সিলভা, ফার্নান্দিহো আর ইয়াকে গুন্দোগান। আক্রমণভাগে দারুণ ছন্দে থাকা বার্নার্দো সিলভা, গ্যাব্রিয়েল জেসুস এবং ফিল ফোডেন।

অর্থাৎ পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে মাঠে নামে সিটিজেনরা। আর দুর্দান্ত এই দল তাদের পারফরম্যান্স দেখায় ময়দানেই। ম্যাচের মাত্র ছয় মিনিটের মাথায় গোল করে দলকে এগিয়ে নেন ডেভিড সিলভা। বর্নমাউথের ডি বক্সের সামনে ফ্রি কিক পায় সিটি আর সেখান থেকে দুর্দান্ত এক গোল করে দলকে ম্যাচে এগিয়ে নেন সিলভা। চলতি মৌসুমে এটি এই স্প্যানিশ মিডফিল্ডারের ৬ষ্ঠ গোল।

ম্যাচে এগিয়ে যাওয়ার পরে খেলা আরো গুছিয়ে আনে সিটি। ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের দখলে রাখে বলের পজিশন ধরে রেখে। পুরো ম্যাচ জুড়ে প্রায় ৭৩ শতাংশ বল নিজেদের দখলে রেখেছিল সিটিজেনরা। তবে ২৭ শতাংশ বল নিজেদের দখলে রাখলেও সিটির রক্ষণে কাপন ধরিয়েছে বর্নমাউথ। গোটা ম্যাচে সিটির গোল বরাবর মোট ১৪টি শট নিয়েছে বর্নমাউথ আর সুযোগ তৈরি করেছে ১০টি।

তবে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ হারায়নি সিটি। প্রথমার্ধের ৩৯ মিনিটে ডেভিড সিলভার অ্যাসিস্ট থেকে সিটিজেনদের ২য় গোলটি আসে গ্যাব্রিয়েল জেসুসের পা থেকে। এবারের মৌসুমে এটি জেসুসের ১৩তম গোল। আর ২-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় সিটি। তবে বিরতি থেকে ফিরেও খুব বেশি সুবিধা করতে পারেনি বর্নমাউথ।

অবশ্য ম্যান সিটিও নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেনি ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে। বিরতির পর রহিম স্টার্লিং, এরিক গার্সিয়ারা মাঠে নামলেও আর কোনো গোলের দেখা পায়নি সিটিজেনরা। উল্টো ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে গোল হজম করে বসে সিটি। বর্নমাউথের হয়ে ডেভিড ব্রুকসের গোলে অবশ্য কেবল হারের ব্যবধানই কমাতে পারে বর্নমাউথ। শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি।

উত্তরণবার্তা/সাব্বির



পুরনো খবর