পানি ভবন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী     হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন ইউএনও ওয়াহিদা খানম     করোনার সংক্রমণ বাড়ায় স্পেনে ফের লকডাউন     ঢাকা-জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ রোড ১০ লেন হচ্ছে     শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি, ছুটি বাড়ছে     আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস আজ     জাতিসংঘে মিয়ানমারের মিথ্যাচার, কড়া প্রতিবাদ বাংলাদেশের     স্থলপথ খুলে দিতে ভারতকে অনুরোধ    

দুর্নীতিবাজদের ছাড় দেওয়া হবে না: চসিক প্রশাসক

  আগস্ট ০৬, ২০২০     ১০৬     ১৬:৫০     আরও
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : দুর্নীতিবাজদের কোনো রকম ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

বৃহস্পতিবার নগরীর টাইগার পাসের অস্থায়ী নগর ভবনে প্রশাসকের দায়িত্ব নেওয়ার পর কর্মকর্তাদের উদ্দেশে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারন করেন তিনি। এর আগে সদ্য বিদায়ী মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের কাছ থেকে দায়িত্ব গ্রহণ করেন খোরশেদ আলম সুজন। এরপর কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

কর্মকর্তাদের উদ্দেশে খোরশেদ আলম সুজন বলেন, দুর্নীতি যারা করেছেন আজকে তওবা করে ফেলেন। যার কাজে অনিয়ম দেখব, দুই নম্বরি দেখব, আমার সাথে বেঈমানি করবেন, তাকে কোনোভাবেই ছাড় দেব না। সেটা আইনি পথে বা বেআইনি পথে হোক। যারা বিশ্বাসঘাতক, সাধারণ মানুষকে কষ্ট দেয় তাদেরকে ক্ষমা করব না।

তিনি বলেন, না পারলে দায়িত্ব ছেড়ে দেব। কিন্তু অন্যায়ের সাথে আপস করব না। ভুল করে ভুল স্বীকার না করা সবচেয়ে বড় অপরাধ। ভুলের হিমালয় তৈরি করা, এটা করতে দেব না। অনেক দিন ধরে কাজ করছেন, আপনাদের যোগ্যতা দক্ষতা প্রশ্নাতীত। এটাকে ভালো কাজে ব্যবহার করুন। প্রধানমন্ত্রীর নিয়োগকৃত প্রশাসক হিসেবে আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। এই সিটি করপোরেশনকে আমি দলীয় কার্যালয় করব না। এখান থেকে নগরবাসীর সেবায় যা প্রয়োজন সেটাই করব।

অতীতের মেয়রদের মতো সিটি করপোরেশনের নতুন প্রশাসকও চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতাকে জলজট হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বলেন, অনেকে আমাকে বলেছে, জলাবদ্ধতা এই শহরের প্রধান সমস্যা। আমি তো বলি যে, এই শহরে কোথাও জলাবদ্ধতা দেখি না। জলাবদ্ধতা মানে যেখানে জল দিনের পর দিন মাসের পর মাস আটকে থাকে। যেমন ঢাকা যাত্রাবাড়িতে, খুলনায় একটা জায়গায় যা দেখি, সেটা জলাবদ্ধতা। এখানে যা হয় সেটা জলজট। জলজটটা কেন হয়? অমাবশ্যা-পূর্ণিমায় যখন জোয়ারটা প্রবল হয় তখন সাথে যদি বৃষ্টিসহ হয় এটা নিষ্কাশনের জন্য যে ব্যবস্থাপনা অনেকটা অপ্রতুল, এটার কারণে কিছুক্ষণ জমে থাকে। কিন্তু যখন ভাটা হয় পানিটা নেমে যায়।

খোরশেদ আলম সুজন বলেন, এই জলজট নিরসনের জন্য প্রধানমন্ত্রী বড় প্রকল্প নিয়ে সেনাবাহিনীর সদস্যদের দিয়ে কাজ করাচ্ছেন। উনারা দিনরাত পরিশ্রম করে কাজ করছেন। শত বছরের সংকট এক বছরে শেষ হবে না। প্রতিদিন খোঁজ রাখব, আশা করি আগামী বছর থেকে একটা সুখবর পাবেন।

সুজন বলেন, আমি ১৮০ দিনের প্রশাসক, প্রতিটা মুহূর্ত সবাইকে নিয়ে কাজ করব। সপ্তাহ দশদিন গেলে বুঝবেন, ১৮০ দিনে কী করতে পারি। আমাকে এখানে যিনি পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী, তিনি নিজেই এই শহরের দায়িত্ব নিয়েছেন। ১৮০ দিনে আমি বড় কোনো প্রজেক্ট নিব না। যেগুলো চলমান সেগুলো যেন সুন্দরভাবে বাস্তবায়ন হয়। আগে পুকুরে নামতে দেন তারপর দেখবেন কিভাবে সাঁতার কাটি।

মতবিনিময় সভায় নতুন প্রশাসককে দায়িত্ব পালনে শতভাগ সহযোগিতা করবেন বলে জানান সদ্য বিদায়ী মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। এ সময় চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা, প্রধান প্রকৌশলী লেফটেন্যান্ট কর্নেল সোহেল আহমদ, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সাইফুদ্দিন আহমদ, প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ একেএম রেজাউল করিম চৌধুরী, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া, চসিক আইসোলেশন সেন্টারের পরিচালক ডা. সুশান্ত বড়ুয়াসহ বিভাগীয় প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

গত মার্চে করোনা মহামারি ছড়িয়ে পড়ার পর চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচন স্থগিত করা হয়। সিটি করপোরেশনের পঞ্চম নির্বাচিত পরিষদের মেয়াদ শেষ হয় গত ৫ আগস্ট। নির্ধারিত সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত না হওয়ায় সরকার আইন অনুযায়ী খোরশেদ আলম সুজনকে ১৮০ দিনের জন্য প্রশাসকের দায়িত্ব দেন।

উত্তরণবার্তা/সাব্বির



১ অক্টোবর, হাসতে নেই মানা

  অক্টোবর ০১, ২০২০

আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস আজ

  অক্টোবর ০১, ২০২০     ২৪

স্থলপথ খুলে দিতে ভারতকে অনুরোধ

  অক্টোবর ০১, ২০২০     ১৬

পুরনো খবর