বর্জ‌্য আর বোঝা নয়, পোড়ালেই বিদ‌্যুৎ     রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত‌্যাবাসনে জোর দিলেন কূটনীতিকরা     আইন-বিধিমালা সবই আছে, পরিপালন নেই : ফজলে নূর তাপস     শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ১৫ দিন পর এইচএসসি পরীক্ষা     তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষার বিকাশ ঘটিয়ে তরুণ প্রজন্মকে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করবে : স্পিকার     স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে : ডিএসসিসি মেয়র     চট্টগ্রামে নাশকতার মামলায় বিএনপি’র ১৬ নেতাকর্মী কারাগারে     আওয়ামী লীগের সম্পাদকমন্ডলীর সাথে যৌথ সমন্বয় সভা আগামীকাল    

আত্রাইয়ে ১৮ গৃহহীন পরিবার পেলো দুর্যোগ সহনীয় পাকাঘর

  আগস্ট ০৯, ২০২০     ৬৫     ২৩:৩৮     আরও
--

উত্তরণবার্তা প্রতিবেদক : নওগাঁর আত্রাইয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রাণালয়ের অধীনে দুর্যোগ সহনীয় ১৮টি গৃহহীন পরিবার পেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া পাকাঘর। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (টি.আর) ও গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিটা) কর্মসূচির বিশেষ বরাদ্দে ২০১৯-২০ অর্থবছরে পাকা বাড়ি নির্মাণ করে দিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন।

জানা গেছে, ‘গৃহহীনদের গৃহদান’ কর্মসূচির অগ্রাধিকার প্রদান, দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাস এবং বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার ‘আমার গ্রাম, আমার শহর’ অনুযায়ী গ্রামীণ এলাকায় যে সকল দরিদ্র জনগোষ্ঠীর সামান্য জমি বা ভিটা আছে কিন্তু টেকসই ঘর নেই তাদের জন্য আটশ বর্গফুটের জায়গায় রান্নাঘর, টয়লেটসহ একটি সেমিপাঁকা টিনশেডের দুই কক্ষ বিশিষ্ট নতুন বাড়ি নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রাণালয় এক কোটি ১৯ লাখ ৯৪ হাজার ৪০০ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে।

উপজেলা পিআইও অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১৯-২০ অর্থবছরে বাড়িগুলো নির্মিত হয়েছে ইটের গাঁথুনি, প্লেনশিটের দু’টি করে দরজা-জানালা, অত্যাধুনিক রঙিন টিনের চারচালা ছাউনি বিশিষ্ট ১০ ফিট লম্বা ও ১০ ফিট আয়তনের দুই কক্ষের বাড়ি। একটি রান্নাঘর ও স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটারি শৌচাগার, বাড়ির সামনে এবং রান্নাঘরের সাথে টিনের ছাউনির বারান্দা রয়েছে সেখানে। এতে খরচ হয়েছে দুই লাখ ৯৯ হাজার ৮৬০ টাকা। ইউএনও এবং জনপ্রতিনিধিদের তত্ত্বাবধানে প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের মাধ্যমে বাড়িগুলো নির্মাণ করেছে সরকার।

সুবিধাভোগী আত্রাই উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের লতা বানু জানান, আমি কোনো দিন পাকা ঘরে থাকার স্বপ্নও দেখিনি। আমাদের সামান্য জমিতে সরকার ঘর করে দেয়ায় স্থায়ী আশ্রয় পেলাম। খেয়ে-না খেয়ে থাকলেও আজ আমি শান্তিতে পাকা বাড়িতে ঘুমাতে পারছি।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নভেন্দু নারায়ণ চৌধুরী বলেন, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নে হস্তান্তরিত দুর্যোগ সহনীয় বাড়ি গুলোতে বন্যা, ঘূর্ণিঝড় এবং বজ্রপাত প্রতিরোধ সক্ষমতা রয়েছে।

আত্রাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছানাউল ইসলাম বলেন, হতদরিদ্রদের জন্য দুর্যোগ সহনীয় বাড়ি নির্মাণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিনব ও চমকপ্রদ একটি কর্মসূচি। সরকারের এই কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য দারিদ্র্য থেকে উত্তরণে গ্রামের পিছিয়ে পড়া মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন এবং কোনো মানুষ যেন বাসগৃহহীন না থাকে।

উত্তরণবার্তা/এআর
 



এক দিনে সুস্থ ২১৩৯

  সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০

পুরনো খবর