আপনার সন্তানকে নিজ পায়ে দাঁড়াতে দিন : সজীব ওয়াজেদ জয়     ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার আজারবাইজান যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী     ভারত অভিজিতের জন্য গর্বিত: নরেন্দ্র মোদি     ভারত অভিজিতের জন্য গর্বিত: নরেন্দ্র মোদি     প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতি-সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স অবস্থান নিয়েছেন: মরক্কোতে আইনমন্ত্রী     ভোলার ঘটনা নিয়ে ফেসবুকে রঙ ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা     ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ     বিনা খরচে জাপান যেতে যা লাগবে    

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় ক্যালকুলেটর, ঘড়ি, মেটালিক কলমসহ যেকোন ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিষিদ্ধ

  সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৮     ২৮৫     ৭:৩৮ অপরাহ্ণ     শিক্ষা
--

উত্তরণ নিউজঃ আগামী ৫ অক্টোবর সকাল ১০টা হতে একযোগে শুরু হবে ২০১৮-২০১৯ শিক্ষা বর্ষে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু, সুন্দর ও নকল মুক্ত রাখতে পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল, ক্যালকুলেটর, ঘড়ি, মেটালিক কলমসহ যেকোন ধরণের ইলেকট্রনিক ডিভাইস আনা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

আজ ২০ সেপ্টেম্বর বেলা ১২টায় ডিএমপি হেডকোয়ার্টার্সে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণকারী সংশ্লিষ্টদের সাথে এক সমন্বয় সভা করেন ডিএমপি কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া বিপিএম (বার), পিপিএম। উক্ত সভায় উল্লিখিত নির্দেশনাসহ বেশ কিছু নির্দেশনা গৃহীত হয়েছে।

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা স্বচ্ছ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে বেশ কিছু ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। গৃহীত ব্যবস্থার মধ্যে- পরীক্ষার দিন শিক্ষার্থীদের সাথে অভিভাবকগণ পরীক্ষার কেন্দ্রের ভেতরে ও পাশে অবস্থান করতে পারবেন না। ক্যাম্পাসে পরীক্ষার্থী ব্যতীত অভিভাবকদের প্রবেশে থাকছে নিষেধাজ্ঞা। যেকোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা প্রতিরোধে মোতায়েন থাকবে পর্যাপ্ত পুলিশ। সেই সাথে প্রতিটি কেন্দ্রে থাকবে মোবাইল কোর্ট। পরীক্ষার দিন সকাল ০৮.৩০ টায় কেন্দ্র খুলে দেয়া হবে। কোন অবস্থায় সকাল ০৯.৩০ টার পরে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। কেন্দ্র ইনচার্জ ব্যতীত কেউ মোবাইল ফোন কাছে রাখতে পারবে না। কেন্দ্র ইনচার্জকে দেয়া হবে এ্যানালগ মোবাইল ফোন। পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশের সময় সকল পরীক্ষার্থীর দেহ তল্লাশী করে প্রবেশ করানো হবে। মেয়েদের তল্লাশীর ক্ষেত্রে থাকবে আলাদা তল্লাশী বুথ। তল্লাশী কাজে পুলিশের পাশাপাশি থাকবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের প্রতিনিধিগণ। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্তে গৃহীত ব্যবস্থাগুলো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রকাশের ব্যবস্থা করা হবে।

সভাপতির বক্তব্যে ডিএমপি কমিশনার বলেন, দেশের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা সম্মিলিতভাবে হয়ে থাকে। ডিএমপি অতীতে যেভাবে ভর্তি পরীক্ষায় সহযোগিতা করেছে বর্তমানে ও ভবিষ্যতেও করবে। এটি আমাদের জাতীয় কাজ, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একার কাজ নয়। ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্তে যেকোন গুজব বা প্রোপাগান্ডা প্রতিরোধে ডিএমপি’র সাইবার ইউনিটসহ তৎপর রয়েছে সরকারের অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থা।

ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে যাতে কেউ কোন প্রকার গুজব বা প্রোপাগান্ডা ছড়িয়ে দেশের জনশৃংখলা বিঘ্ন করতে না পারে সেদিকে সকলের কঠোর নজরদারি রাখার আহবান জানান।

ঢাকার ০৫টি মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা ০৯টি কেন্দ্রে আগামী ৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে ৩৪,৭৪০ জন শিক্ষার্থী।

উক্ত সমন্বয় সভায় উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক এবিএম মাকসুদুল আলম অধ্যক্ষ শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ, ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী প্রক্টর ঢাবি, অধ্যাপক ডাঃ এম এ রউফ পরিচালক চিকিৎসা শিক্ষা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, অধ্যাপক ডাঃ মোঃ বিল্লাল আলম অধ্যক্ষ স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ, খান আবুল কালাম আজাদ অধ্যক্ষ ঢামেক, ডাঃ শাহ গোলাম রব্বানী অধ্যক্ষ মুগদা মেডিকেল কলেজসহ মেডিকেল কলেজ  ও ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্রের প্রতিনিধি, ডিএমপি’র উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিগণ।
(উত্তরণ/আইস)



পুরনো খবর