শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ     সব সম্প্রদায়ের মানুষের নিরাপদ জীবনযাপন নিশ্চিত করতে কাজ করছে সরকার     বিএসএফ সদস্য নিহতের ঘটনা ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী     সমাধান হওয়া ইস্যু হালে পানি পাবে না: ঐক্যফ্রন্টকে ড. হাছান মাহমুদ     বাংলাদেশে ফুটবলের কাছে ক্রিকেট পাত্তাই পাবে না : ফিফা সভাপতি     ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য দল ঘোষণা     ভ্যাট চালানপত্র ৫ বছর সংরক্ষণ বাধ্যতামূলক করেছে এনবিআর     নবম জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তর সংকলনের মোড়ক উন্মোচন প্রধানমন্ত্রীর    

হাজার টাকার পাথর ৭৫ কোটি টাকায়

  অক্টোবর ১১, ২০১৮     ১৫০     ১:০৭ পূর্বাহ্ন     আরও
--

উত্তরণবার্তা ডেস্ক : চোখে পড়ার মতো তেমন কিছুই নেই। অবহেলায় পড়েছিল ঘরে বছরের পর বছর। কিন্তু পরে দেখা গেছে জিনিসটি আর সাধারণ কিছু নয়, নিলামে তুললে এর মূল্য আকাশচুম্বী।

এমন কয়েকটি ব্যবহার্য বস্তু নিয়ে আজকের এ উপস্থাপন, যার দাম ছিল প্রথমে সামান্যই।

সিরামিক প্লেট ১৯৭০ সালে একটি সিরামিক প্লেট কিনেছিলেন আমেরিকার রোড আইল্যান্ডের এক বাসিন্দা। সেই সময়ের বাজারমূল্য অনুযায়ী সাড়ে ৬ হাজার টাকা দিয়ে এ প্লেটটি কিনেছিলেন তিনি। রান্নাঘরে গ্যাস ওভেনের পাশেই রাখা ছিল এটি। তেমন আহামরি দেখতে ছিল না প্লেটটি।

তবে প্লেটে ছিল একটি নকশা। পরে জানা গেছে, এ নকশাটি পিকাসোর আঁকা। ব্যস মাত্র সাড়ে ৬ হাজার টাকা দামের প্লেটের মূল্য গিয়ে দাঁড়ায় প্রায় ৭৫ কোটি টাকা।

অমূল্য পাথর দরজার পাশে পড়েছিল এক টুকরো পাথর। পাথটি ছিল ৩০ বছরের পুরনো। দেখতেও একটু বিদঘুঁটে। একটু ভিন্ন ধরনের পাথর দেখে অনেকটা শখের বসে দুই হাজার টাকায় এটিকে কিনেছিলেন এক ব্যক্তি।

বাড়িতে দরজার পাশে রেখে দেন তিনি। পরে এ পাথরের দাম ধার্য হয় প্রায় ৭৫ কোটি টাকা! এর কারণ পাথরটি ছিল মেটিওরাইট! অর্থাৎ এটি ছিল মহাকাশ থেকে খসেপড়া ধূমকেতু বা উল্কার টুকরো।

একটি ফটোগ্রাফ মাত্র ৯৬৪ টাকায় একটি ফটোগ্রাফ কিনে অযত্নে অ্যালবামে রেখে দিয়েছিলেন এক ব্যক্তি। পরে জানা যায়, সেটি আমেরিকার কুখ্যাত ডাকাত জেসি জেমসের। যিনি ছিলেন অ্যাডভেঞ্চারাস গল্পের সত্যিকার প্রবাদ পুরুষ রবিনহুড।

ঐতিহাসিক এ চরিত্রটি নিয়ে যে কিংবদন্তি রচিত, তা হল তিনি ধনীদের থেকে টাকা ছিনতাই করে দরিদ্রদের বিলিয়ে দিতেন। এ ফটোগ্রাফ ছিল সেই কিংবদন্তি রবিনহুডেরই। এটি জানার পর পরই এ ফটোগ্রাফটির দাম ধার্য হয় প্রায় ১৫ কোটি টাকা।

চকমকে ব্রোচ মেয়েকে একটি ব্রোচ কিনে উপহার দিয়েছিলেন মা। দাম ছিল দুই হাজার টাকা। পরে জানা যায়, এটি রাশিয়ার এক রানির। অভিজাত ও প্রাচীন ব্রোচটির দাম প্রায় ৪ লাখ ১০ হাজার টাকা।

ঐতিহাসিক ঘোষণাপত্র বিভিন্ন ঐতিহাসিক জিনিসপত্র কেনার অভ্যাস ছিল এক অর্থনীতি বিশেষজ্ঞের। মাত্র ২৮০ টাকায় একটি ছবি কিনেছিলেন তিনি। পরে দেখা গেল এটি আসলে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র। ১৭৭৬ সালে ৫০০ অফিসিয়াল কপির মধ্যে একটি। এমন ঐতিহাসিক পত্রের প্রথমেই দাম ধার্য হয় প্রায় ১৮ কোটি টাকা!

দৈত্যাকার মুক্তা দৈত্যাকার এক মুক্তা পেয়েছিলেন এক জেলে। এটি ছিল ২.২ ফুট লম্বা, এক ফুট চওড়া ও ৩৫ হাজার গ্রাম। পাথর হিসেবে ঘরের এক প্রান্তেই রেখে দিয়েছিলেন তিনি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ প্রাকৃতিক মুক্তা এটি। এ কারণে এর অমূল্য এ সম্পদটির দাম ওঠে প্রায় ৭৪২ কোটি টাকা!

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

উত্তরণবার্তা/এআর



শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ

  অক্টোবর ১৮, ২০১৯

পুরনো খবর